DT Terms and Conditions

১) মার্চেন্টকে অবশ্যই ডেলিভারি টাইগারের ওয়েবসাইটে প্রোডাক্ট ডেলিভারির জন্য সকল প্রকার তথ্য এবং সঠিক ওজন নির্ধারণ করে অর্ডার প্লেস করতে হবে।

২) মার্চেন্ট সকল প্রকার প্রোডাক্টের প্যাকেজিং এর ব্যবস্থা করবেন।

৩) প্রোডাক্ট পিক করতে কালেক্টর পৌঁছানোর আগেই মার্চেন্টকে প্রোডাক্ট প্রস্তুত রাখতে হবে।

৪) মার্চেন্ট ভুল ওজন সিলেক্ট করলে ডেলিভারি টাইগার কর্তৃপক্ষ যথাযথ ওজন ঠিক করে যথাযথ বিল চার্জ নির্ধারণ করার ক্ষমতা রাখে।

৫) ক্রটিযুক্ত প্যাকেজিং এর কারনে প্রোডাক্ট ড্যামেজ হলে ডেলিভারি টাইগার কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

৬) ডেলিভারি টাইগার ডেলিভারিকৃত পণ্যের ধার্যকৃত টাকা কালেক্ট করবে এবং কাস্টমার ডেলিভারি পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে মার্চেন্টকে প্রদান করবে। সরকারী ছুটি কিংবা অনিবার্য কারন বশত প্রতিশ্রুত তারিখ পরিবর্তন হতে পারে।

৭) ডেলিভারি টাইগার এর মাধ্যমে মার্চেন্ট শুধুমাত্র বৈধ প্রোডাক্ট ডেলিভারি করতে পারবেন। কোন প্রকার নাশকতামূলক কিংবা অবৈধ প্রোডাক্ট ডেলিভারি করা যাবে না।

৮) প্রোডাক্ট ডেলিভারী/রিটার্ন এর সময় কোন ড্যামেজ হলে ডেলিভারী টাইগার উক্ত প্রোডাক্ট মূল্যের ৫০% (সর্বোচ্চো ১০০০ টাকা পর্যন্ত) ক্ষতিপূরণ বহন করবে । সেক্ষেত্রে ড্যামেজ প্রোডাক্টটি ডেলিভারী টাইগার হাতে পাওয়ার পর ক্ষতিপূরণের টাকা মাচেন্টকে প্রদান করা হবে।

৯) কোন কারণে কাস্টমার প্রোডাক্ট গ্রহণ না করলে কাস্টমারকে না পাওয়া গেলে প্রোডাক্ট মার্চেন্টকে রিটার্ন করা হবে। সেক্ষেত্রে মার্চেন্ট রিটার্ন প্রোডাক্ট গ্রহণ করতে বাধ্য থাকিবে।

১০) কাস্টমার একবার প্যাকেজিং খুলে ফেললে ডেলিভারি টাইগার আর সেই প্রোডাক্ট রিটার্নের জন্য গ্রহণ করবে না।

১১) ভঙ্গুর প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ৩০ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে।

১২) ডেলিভারি টাইগার যে কোন পরিস্থিতিতে চুক্তির পরিবর্তন ও পরিবর্ধনের ক্ষমতা রাখে।

১৩) ডেলিভারি টাইগারের সার্ভিসের ক্ষেত্রে নিম্নে প্রদত্ত ডেলিভারি চার্জ এবং COD চার্জ ১.% প্রযোজ্য হবে (সর্বনিম্ন ১০ টাকা) ।

১৪) অ্যাডভান্স অর্ডার এর ক্ষেত্রে ডেলিভারি টাইগারের অর্ডার প্যানেলে মার্চেন্ট যে অর্ডার ডিক্লেয়ার করেছে (ম্যাক্সিমাম ৫০০০ টাকা), তার বেশি মূল্যবান এর কোন প্রোডাক্ট ডেলিভারি করার জন্য দেয়া হলে ডেলিভারি টাইগার শুধুমাত্র অর্ডারের ডিক্লেয়ারকৃত প্রাইস বিবেচনায় নিবে।

১৫) *পণ্যের সাইজ ৩০ সে. মি. এর চেয়ে বড় এবং ওজন ২ কে. জি. এর কম হয় তাহলে পণ্যের ওজন পরিমাপ করা হবে ঘনতা (Dimension) অনুসারে (দৈর্ঘ্য, প্রস্থ, উচ্চতা) ।